মান্নানের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন আ.লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ

146

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ওবায়দুল কাদের, মজিবর রহমান মজনুসহ স্থানীয় নেতাকর্মীদের নামে বগুড়ায় আলোচিত পরিবহন ব্যবসায়ী মান্নান আকন্দের অশালীন আপত্তিকর ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শনিবার দুপুরে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার রায় প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ বিবৃতি জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, শুকরা অনলাইন টিভি পোর্টাল ব্যবহার করে লাগামহীনভাবে অশালীন, কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেছেন। তার এই কর্মকান্ডে সরকার ও সংগঠনের ভাবমূর্তি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ইতিপূর্বে তিনি বগুড়া পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে সংগঠনকে চরমভাবে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন। তিনি নিজেকে আওয়ামী লীগ নেতা পরিচয় দিয়ে থাকেন অথচ তিনি প্রতিনিয়ত অন্য কোন রাজনৈতিক দল নয় বরং আওয়ামী লীগ ও বর্তমান সরকারের নেতৃবৃন্দের নামেই অশালীন বক্তব্য প্রদান করে আসছেন। এই ধরনের উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার দায়ে দ্রুত তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করাসহ উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন বগুড়া পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি গাবতলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফি নেওয়াজ খান রবিন ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হাসান ববি, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান শফিক ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল ইসলাম রাজ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আব্দুস সালাম, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি আলমগীর বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, বগুড়া জেলা যুবলীগের সভাপতি শুভাশিস পোদ্দার লিটন ও সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ডাবলু, বগুড়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাজেদুর রহমান শাহীন ও সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার রহমান শান্ত, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট লাইজিন আরা লিনা ও সাধারণ সম্পাদক ডালিয়া নাসরিন রিক্তা, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈমুর রাজ্জাক তিতাস ও সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার রায়, জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রাজন মৎস্যজীবী লীগের আহ্বায়ক রাসেল আহমেদ কনক যুগ্ন-আহবায়ক ইসানুর, মাহফুজ জামান, পবন সরকার সদস্য সচিব কামরুজ্জামান মানিক প্রমূখ। এছাড়া নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে শুকরা অনলাইন টিভি বন্ধ করার জন্য জেলা প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, ইতিপূর্বেও মান্নান আকন্দ বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি টি জামান নিকেতা, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রফি নেওয়াজ খান রবিন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান শফিক,সহ অনেক নেতৃবৃন্দের নামে হুমকি-ধামকিসহ অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেছেন।