ধুনটে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১, আহত ১০

158

বগুড়া ধুনট উপজেলায় বরযাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে পড়ে সাধন চন্দ্র (৭০) নামের একজন নিহতের ঘটনা ঘটছে।

গত রবিবার আনুমানিক সন্ধ্যা ৭টার দিকে ধুনট উপজেলার রুদ্রবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সাধন চন্দ্র উপজেলার পীরহাটী গ্রামের গদাই চন্দ্রের ছেলে।

এ ঘটনায় আরো অন্তত ১০ জন আহত হন। থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রুদ্রবাড়িয়া গ্রামের পলান কুমারের ছেলে তাপস কুমার রবিবার সন্ধ্যায় বরযাত্রী নিয়ে শেরপুরের ঘাটপার এলাকায় বিয়ে করার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। তার বরযাত্রায় তামান্না এন্টারপ্রাইজ নামের একটি বাস ছিল। বাসটি বাড়ির অদূরে বাও নদীর ওপর সেতুতে ওঠার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে পড়ে যায়। ওই বাসটিতে প্রায় ৩০/৩৫ জন বরযাত্রী ছিলেন।

বাসটি খাদে পড়ার পর থেকে স্থানীয় লোকজন ও ধুনট ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সদস্যরা সেখানে উদ্ধার অভিযান চালায়। অভিযানকালে সাধন চন্দ্রের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। সাধন চন্দ্র ওই বিয়েতে বাদ্যকার হিসেবে অংশ নিয়েছিলেন এবং রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় ১০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিদ্ধু বালা এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রুদ্রবাড়িয়া গ্রামে বরযাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে পড়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা স্থানীয় লোকজনের সহায়তা নিয়ে সেখানে উদ্ধার অভিযান চালায়। এ ঘটনায় সাধন চন্দ্র নামের একজন নিহত এবং অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।