অন্যের সঙ্গে সন্তানের তুলনা করছেন? কী ক্ষতি হতে পারে

73

এর ছেলে ভালো, ওর মেয়ে ভালো, পাশের বাড়ির ছেলে ভালো রেজাল্ট করেছে,অমুক বাড়ির ছেলে অনেক রোজগার করছে এরকম তুলনা অভিভাবকরা অহরহ করে থাকেন। কিন্তু আপনি জানেন কি এর ফলে আপনার সন্তান অ্যাংজাইটি ডিসওর্ডারে আক্রান্ত হচ্ছে। এমনটাই জানা গিয়েছে সমীক্ষায়। এজন্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সন্তানের সঙ্গে সবসময় ইতিবাচক কথা বলুন, ভুল হলে তাকে বুঝান।

ন্যাশানাল অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্স জার্নালে একটি সমীক্ষায় বলা হয়েছে, সেই সমস্ত ছেলে মেয়েরা যারা প্রতিনিয়ত এই ধরণের তুলোনামূলক সমালোচনার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে তাদের মধ্যে উদ্বেগ, হতাশা এবং স্নায়ুর সমস্যা দেখা যাচ্ছে। দিন দিন তাদের মানসিক স্বাস্থ্যের অবস্থা ঝুঁকপূর্ণ হচ্ছে।

নেতিবাচক কথা বলে সন্তানকে ঠিক করা যাবে না। তাই সন্তানের সঙ্গে বন্ধুর মতো মিশুন। বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনটা খারাপ, কোনটা ভালো সেটা বোঝান। ছোট থেকেই সেই অভ্যাস গড়ে তুলুন। মনে রাখবেন, অন্য ছেলে মেয়ের সঙ্গে তুলনা তার মনে যে প্রভাব ফেলছেন, সেও সেই পদ্ধতি শিখতে পারে। অথবা নিজেকে আরও গুটিয়ে নিতে পারে। তাই সাবধান হন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, লক্ষ্য কি সেটা সন্তানকে বুঝিয়ে দিন। পরবর্তীকালে তাকেই লক্ষ্য স্থির করতে দিন। অভিভাবক হয়ে পাশে থেকে নির্দেশনা দিন।