1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
গাজীপুরে দুই সহোদর কিশোরী গণধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষণকারী গ্রেফতার - বিএসএল বার্তা




গাজীপুরে দুই সহোদর কিশোরী গণধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষণকারী গ্রেফতার

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৪৩ বার পড়া হয়েছে

গত ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ আনুমানিক রাত ৮টার সময় গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী বাজার এলাকায় কিশোরী (১৮) ও তার ছোট বোন কিশোরী (১৭) তাদের ফুফাতো ভাই মোঃ জয়নাল মিয়া (৩২) এর সাথে দেখা করতে আসে। টঙ্গী বাজার আসার পর ভিকটিমদ্বয় জয়নাল মিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ পেলে তারা তুরাগ নদীর পার্শ্বে তার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। তখন ভিকটিমদ্বয়কে একা দেখতে পেয়ে মোঃ নাঈম (২২), মোঃ রাসেল ও মোঃ শরীফ সহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জন তাদের সাথে যাওয়ার জন্য ভিকটিমদের চর-থাপ্পর মারতে থাকে এবং প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। পরবর্তীতে বিবাদীরা ভিকটিমদের টঙ্গী হাজীর মাজার বস্তির পিংকী গার্মেন্টস এর পিছনে দক্ষিণ পার্শ্বে ফাকা জায়গায় নিয়ে এসে ভিকটিমদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। উক্ত ঘটনায় ভিকটিম (১৮) বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ একটি মামলা দায়ের করেন, যাহা মামলা নং-১০।

উক্ত ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে এবং বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্বের সাথে প্রচার করে। এরই প্রেক্ষিতে গত ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ আনুমানিক রাত ১১:৩০ মিনিটের সময় র‌্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী হাজীর মাজার বস্তি সংলগ্ন কবরস্থানের পাশে অভিযান পরিচালনা করে ২ ধর্ষণকারীকে গেস্খফতার করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, মোঃ শরীফ (২২), পিতা- মোঃ বাবুল মিয়া, সাং- হাজীর মাজার বস্তি, থানা- টঙ্গী পশ্চিম, জিএমপি, গাজীপুর ও মোঃ মমিন মিয়া (২৪), পিতা- মোঃ নাজিম মিয়া, সাং- সান্দারপাড়া, থানা- টঙ্গী পশ্চিম, জিএমপি, গাজীপুর।

গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গত ১০/১২/২০১৯ইং তারিখ ভিকটিম কিশোরী (১৮) ও তার ছোট বোন কিশোরী (১৭)’দ্বয়কে ধৃত আসামী শরীফ ও মমিন এবং পলাতক সহযোগী নাঈম, রাসেল, আবুল হোসেন ও আরাফাত’গন মিলে ধর্ষণের শিকার দুই ভিকটিমকে টঙ্গী বাজার তুরাগ নদীর পাড় থেকে চর-থাপ্পর মেরে জোরপূর্বক নৌকায় তুলে টঙ্গী ইজতেমা মাঠের নির্জন জায়গায় নিয়ে আসে। আসামীরা প্রথমে জোরপূর্বক ভিকটিমদ্বয়কে দেশীয় চোলাই মদ এবং মদের সাথে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খাওয়ায়। পরবর্তীতে ভিকটিমদ্বয় যখন স্বাভাবিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে তখন সকল আসামীরা মিলে তাদেরকে উপর্যুপরি জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় ভিকটিমদের চিৎকারে আশেপাশের এলাকার লোকজন জড়ো হলে আসামীরা দুইজন ভিকটিমকে ঘটনাস্থলে ফেলে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

উক্ত বিষয়টি অদ্য ১১ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখ র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ সারওয়ার-বিন-কাশেম’র স¦াক্ষরিত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

বিএসএল / জি এস




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team