1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চরম অনিয়ম, স্বাস্থ্যসেবা হুমকির মূখে - বিএসএল বার্তা




আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চরম অনিয়ম, স্বাস্থ্যসেবা হুমকির মূখে

মাসুদ রানা আটঘরিয়া (পাবনা) প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৪৩ বার পড়া হয়েছে

প্রায় দুই লাক্ষ্যাধিক মানুষের একমাত্র চিকিৎসা সেবার ভরসা আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমল্পেক্্র। এই স্বাস্থ্য কমল্পেক্্ের চলে চরম অনিয়ম ও দূর্ণীতির কারণে স্বাস্থ্য সেবা হুমকির মূখে পরেছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ও কর্মচারী সংকটে ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসা সেবা। এমনটি এ স্বাস্থ্য কমল্পেক্্ের নেই কোনো ধরনের অপারেশনের ব্যবস্থা, নেই এক্্র-রে মেশিন ও রোগীদের রোগ নির্ণয়ে প্রাথমিক সেসব পরীক্ষা অত্যাবশক তার কোনো ব্যবস্থা। যা আছে তাও অপুতল। ফলে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত উপজেলা বাসী। সেবা নিতে আসা রোগী ও স্বজনদের অভিযোগ ডাক্তার সময়মত আসেন না। ফলে চিকিৎসা সেবা না পেয়ে হন্য হয়ে হাসপাতাল থেকে ফিরে যাচ্ছে রোগী। এসবের কারণে রয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো: রফিকুল ইসলাম।

তবে অনুসন্ধানে জানা গেছে, আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমল্পেক্্ের দীর্ঘ দিন ধরে চলছে চরম অনিময়, অব্যবস্থাপানা। চুরি ও দূর্ণীতিতে স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসিকে ধোকা দিয়ে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে অনিয়ম করছে হাসপাতালের কর্মরত চিকিৎসকেরা। প্রশাসন যেন দেখেও না দেখার ভান করছে। সকাল থেকে একটা পর্যন্ত ৩ জন এমবিবিএস আর ৬ জন সেকমো দিয়ে চলে আসছে হাসপাতালের স্বাস্থ্য সেবা। এর পরে সেকমো ছাড়া কোনো ডাক্তার থাকে না। ইন্ডোর আউটডোর চালায় সেমকো বা মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট দিয়ে। তবে হাপতালের ইমারজেন্সিতে সেকমোদের সিন্ডিকেট সব সময় কাজ করে থাকে।

শিশু ওয়ার্ডের মত গুরুত্বপূর্ন বিভাগ সেখানে রোগী দেখা হয় সেকমো ডাক্তার দিয়ে। প্যাথলোজিতে নামমাত্র পরীক্ষা করা হয়। রোগীদের দিয়ে সিরিঞ্জ কেনানো বাধ্য করা হয়ে থাকে। অডিট খরচের কথা বলে প্যাথলোজিতে রোগীদের থেকে ২০/৩০ টাকা করে নেওয়া হয়ে বলে রোগিদের অভিযোগ। টেকনোলজিষ্ট জিল্লুর রহমান প্যাথলোজিতে প্রাইভেট টাকা নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেন। হাসপাতালে দির্ঘদিন যাবৎ এ্যাক্্ের, ইসিজি মেশিন অকেজো হয়ে পড়ে রয়েছে। হাসপাতালে ইউজিার ফি চালু না হতেই আলট্রাসনোগ্রাম বাবদ ২২০ টাকা আলট্রা করে ইনকাম করা হয় বলে রোগিদের আরোও অভিযোগ।

হাসপাতালে কোনো আলট্রাসনোলজিষ্ট ডাক্তার নেই। সাধারন এমবিবিএস ডাক্তার দিয়ে আইওয়াশ আলট্রা করা হচ্ছে। গত ১৭ নভেম্বর এই সকল অপকর্ম ধামা চাপা দেওয়ার জন্য হাসপাতালের স্টাফরাই আলট্রাসনোগ্রাম মেশিন সরিয়ে রেখে চুরি হওয়ার প্রচার চালিয়ে মানুষ ও প্রশাসনকে তারা বোকা বানানো চেষ্টা চালায়। পরে চাপের মুখে চুরি যাওয়া আলট্রাসনোগ্রাম মেশিন স্টাফরাই রাতের আধারে হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্সের গাড়িতে এনে রাখার সময় হাতে নাতে গ্রেপ্তার হয় দুইজন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এহেন অপকর্মের বিরুদ্ধে রোগি ও এলাকাবাসীর জোড় দাবি বর্তমান টিএইচও মো: রফিকুল ইসলামের সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহন করলে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য উর্ধবতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন আটঘরিয়া উপজেলাবাসি।

এবিষয়ে উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জহুরুল হক জানান, ডাক্তার, যন্ত্রপাতি সংকট থাকার কারনেই স্বাস্থ্য সেবা মারাক্ত আকার ধরন করেছে। কিন্তু বাস্তবে রোগিরা স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছে না। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি দেয়া দরকার বলে মনে করেন তিনি। আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম রতন জানান, কিন্তু প্রতিদিন রোগির সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স যন্ত্রপাতি সহ নানান সংকটের কারণে হাসপাতালটিতে চিকিৎসা সেবা চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। চিকিৎসা নিতে আসা রোগিরা কোনো সেবা না পেয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।

আটঘরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তানভীর ইসলাম জানান, প্রায় দুই লাখ মানুষের একমাত্র চিকিৎসা ভরসা আটঘরিয়া হাসপাতাল। একটি পৌরসভা ও পাঁচটি ইউনিয়ন ও পার্শ্ববতী উপজেলা থেকেও রোগিরা সেবা নিতে আসে। তবে এই হাসপাতালে চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া অতি জরুরী বলে মনে করেন তিনি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, ১৩৬টি মঞ্জুরিকৃত পদের মধ্যে ৪১টি পদ শূন্য রয়েছে। পুরুষ কর্মরত পদ রয়েছে ৫৮জন, মহিলা কর্মরত পদ রয়েছে ৩৭ জন, এর মধ্যে ১৫ জন ডাক্তারের মঞ্জুরিকৃত পদ পদের মধ্যে ৪ জন পুরুষ ও ১ জন মহিলা ডাক্তার কর্মরত আছেন । প্রথম, তৃতীয়, চতৃর্থ শ্রেনীর লোকবল নেয়ার বিষয়টি উধর্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। একারনেই সাধারন রোগিদের সেবা দিতে সমস্যা হচ্ছে। তবে অনতিবিলম্বে এ সমস্যা সমাধান হবে।

বিএসএল / জি এস




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team