1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
সারাদেশে মুক্ত দিবস পালিত - বিএসএল বার্তা




সারাদেশে মুক্ত দিবস পালিত

বিএসএল ডেক্সঃ
  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ২৮ বার পড়া হয়েছে

আজ ৬ ডিসেম্বর, গণতন্ত্র মুক্তি দিবস ও স্বৈরাচার পতন দিবস। ১৯৯০ সালের এই দিনে ছাত্র-জনতার উত্তাল গণ-আন্দোলনের চূড়ান্ত পর্যায়ে গণঅভ্যুত্থানের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হন স্বৈরশাসক এইচ এম এরশাদ। এরশাদের পতনের মধ্য দিয়ে মুক্তি পায় গণতন্ত্র।

এদিন তিন জোটের রূপরেখা অনুযায়ী নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ক্ষমতা হস্তান্তরে বাধ্য হন।

দেশের বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনঃ

তম্নয় আহমেদ নয়ন, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ যথাযোগ্য মর্যাদায় নানা আয়োজনে লালমনিরহাট পাক হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। ৬ ডিসেম্বর সকালে সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে বর্নাঢ্য শোভা যাত্রা বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে।

জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  মতিয়ার  রহমান, সিভিল সার্জন ডা: কাসেম আলী, ক্যাপ্টেন (অব:) আজিজুল হক বীর প্রতীক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা  ইউনিট কমান্ডার মেজবাহ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক  শফিকুল ইসলাম, সমাজসেবী কবি ফেরদৌসী বেগম বিউটি প্রমুখ। এছাড়াও জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও মুক্তিযোদ্ধা সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ৫ডিসেম্বর বিকাল থেকে মুক্তিযোদ্ধারা লালমনিরহাট শহর ঘিরে ফেললে অবস্থা বেগতিক দেখে  ৬ ডিসেম্বর ভোর ৬টার দিকে রেলওয়ে স্টেশন থেকে পাক সেনা, রাজাকার, আলবদর ও তাদের দোসররা ২টি বিশেষ ট্রেন যোগে রংপুর ক্যান্টমেন্টে পালিয়ে যায়। মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিরোধের মুখে পাক বাহিনীর হাত থেকে মুক্ত হয় পুরো জেলা। ওই দিন লালমনিরহাটের সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়ে মুক্তির উল্লাস আর আনন্দ।

মুক্তিযুদ্ধের ৬নং সেক্টরের অবস্থান ছিল লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারীতে। এ সেক্টরের কমান্ডার ছিলেন বিমান বাহিনীর এম খাদেমুল বাশার। ৬ডিসেম্বর ওই সেক্টর থেকে বাঁধ ভাঙ্গা জোয়ারের মতো মানুষ জয় বাংলা ধ্বনি দিয়ে ও  বিজয়ের পতাকা নিয়ে ঢুকে পড়ে লালমনিরহাট শহরে।  প্রতিবছর  ৬ডিসেম্বর লালমনিরহাট জেলা হানাদার মুক্ত  দিবস  হিসেবে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়।

জুলফিকার আলী, কলারোয়া (সাতকক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ৬ ডিসেম্বর কলারোয়া মুক্ত দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সকাল টায় জাতীয় পতাকা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদে পতাকা উত্তোলন।

সকাল ৮.১৫ মিনিটে পৌর সদরের তুলশীডাঙ্গা খাদ্য গুদাম গোডাউন মোড়ে নির্মিত উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবনের সামনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে এবং সকাল সাড়ে ৮টায় কলারোয়া ফুটবল মাঠের দক্ষিণ পাশে অবস্থিত মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের গণকবরে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়। পুষ্পমাল্য অর্পন করেন-উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষে প্রশাসক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজ, সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আলী গাজী, ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন, কপাই এর সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজাসহ অন্যন্যেরা। পরে বেলা ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে ৭১ রণাঙ্গণের বেশে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালী শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে বেলা ১১টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায়  মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আর এম সেলিম শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন-এড.মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন-সাবেক সংসদ বীর মুক্তিযুদ্ধা বিএম নজরুল ইসলাম,যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোসলেম উদ্দীন, যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ গফ্ফার, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, কলারোয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রাজিব হোসেন, সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, উপজেলা জাসদ এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, উপজেলা ওয়ার্কাস পাটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন-কপাই এর সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজা।

বিএসএল / জি এস




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team