1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
সাপাহারে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে সরকারী কবরস্থান দখলের অভিযোগ  - বিএসএল বার্তা




সাপাহারে আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে সরকারী কবরস্থান দখলের অভিযোগ 

তছলিম উদ্দীন সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশিত সময় : মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৯
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

নওগাঁর সাপাহারে জনসাধারনের ব্যাবহার্য সরকারী সম্পত্তি কবরস্থান দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে। স্থানীয় ওই নেতা সাপাহার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলী মর্তুজা।

উক্ত ইউনিয়নের ভিওইল গ্রামের ১শ’জন জনসাধারণের স্বাক্ষরিত এক অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে উক্ত গ্রাম ও গ্রামের বিদ্যালয় মাঠের দক্ষিনাংশে আর এস ১নং খতিয়ানের ৭৯নং দাগে ৯৩শতাংশ কবরস্থান নামে রেকর্ড ভুক্ত জমি দীর্ঘ দিন ধরে আলী মর্তুজা গং এর লোকজন আমবাগান করে ভোগদখল করে আসছে। সম্প্রতি তারা উক্ত স্থানে একটি পুকুর খননের উদ্যোগ নিয়ে খনন কাজ শুরু করলে খননকালে সেখান থেকে একটি মানব দেহের কঙ্কাল বের হয়। মানব দেহের কঙ্কাল দেখে খননকৃত লেবার মহব্বত আলী ভয়ে শিউরে ওঠে এবং খননকাজ বন্ধ করে দেয়। এর পর সে ওই দিনই তার কৃত কর্মের জন্য লজ্জিত হয়ে সমাজের নিকট ভুল স্বিকার করে একটি মোরগ জবাই করে সিন্নি বিতরণ করে দেয়।

বিষয়টি জানাজানি হলে গ্রামের লোকজন কবরস্থানের জায়গা দখলকারীর বিরুদ্ধে ফুঁসে ওঠে। তার পর গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে সরকারী কবরস্থান দখলে বাধা দেয়ার জন্য ১শ’গ্রামবাসী স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগপত্র ভূমি মন্ত্রনালয়ের সচিব, বিভাগীয় কমিশনার রাজশাহী, জেলা প্রশাসক নওগাঁ ও স্থানীয় উজেলা নির্বাহী অফিসে দাখিল করেন।

এবিষয়ে সরকারী সম্পত্তি দখলকারী আলী মর্তুজার সাথে কথা হলে উক্ত সম্পত্তির উপর ১৯৭৯সালের চাপাই নবাবগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের একটি রায়ের কাগজ প্রদর্শন করে বলেন যে উক্ত সম্পত্তি তার বাবা সরকার বাহদুরের বিপক্ষে মামলা করে রায় পেয়েছেন। তাই উক্ত সম্পত্তি তাদের বলে দাবী করে দীর্ঘ দিন ধরে ভোগদখল করে আসছেন। তবে জমির কাগজপত্রে খতিয়ান নং-১ ও শ্রেণী কবর স্থান উল্লেখ থাকলেও তার রায়ের কাগজে জমির শ্রেণী ডাঙ্গা উল্লেখ রয়েছে। এর পর উক্ত বিষয়ে সহকারী ভূমি কমিশনার সোহরাব আলী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যান চৌধুরীর সাথে কথা হলে তারা জানান যে, এ সংক্রান্ত কোন অভিযোগ তারা এখনও পাইনি তবে পেলে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নিবে বলে জানান।

ইতো পূর্বে ওই আওয়ামীলীগ নেতা দাপটের সাথে এলাকায় অনেক সরকারী খাসপুকুরও জবর দখল করে মৎস্যজীবী হিসেবে মাছের চাষাবাদ করে আসছেন বলেও এলাকার অধিকাংশ মানুষ দাবী করে বলেছেন কিন্তু আলী মর্তুজার সাথে কথা হলে সরকারী নিয়ম নিতী অনুযায়ী তিনি সরকারী খাস পুকুরগুলি ইজারার মাধ্যমে লিজ নিয়ে তাতে মাছ চাষ করছেন বলে জানান।

মৎস্যচাষ করে তিনি তার ভাগ্যোর পরিবর্তন ঘটিয়েছেন তার এই উন্নয়ন সহ্য করতে না পেরে অনেকেই তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অভিযোগ আনছেন বলেও তিনি প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

বিএসএল / জি এস




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team