1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
কাপাসিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে কাঠের সেতু নির্মাণ - বিএসএল বার্তা




কাপাসিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে কাঠের সেতু নির্মাণ

মোহাম্মদ সবুজ
  • প্রকাশিত সময় : মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই, ২০২০
  • ৮৭ বার পড়া হয়েছে

নিজেদের যাতায়াত ব্যবস্থা ভালোভাবে গড়তে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে একটি চমৎকার কাঠের সেতু নির্মাণ করেছেন এলাকাবাসী।

কাপাসিয়া উপজেলার বারিষাব ইউনিয়নের বারিষাব গ্রামের (বানারকান্দি) ও নরোত্তমপুর গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া বানার নদীর ওপর কাঠের সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

এদিকে লোকজনের স্বেচ্ছাশ্রম ছাড়াও এই কাঠের সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২ লক্ষ টাকা। আর এসব অর্থ ব্যয় হয়েছে এলাকার জনগনের দানে।
কাঠের ওই সেতুর দৈর্ঘ্য ৫০ ফুট এবং প্রস্থ ৫ ফুট। এলাকাবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে ২০২০ সালের জানুয়ারির শেষ দিকে সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু করে তা মার্চের শেষ সপ্তাহে এসে সম্পন্ন হয়। এদিকে ২৬ জুলাই সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
করা হয় এবং মানুষ চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।

বারিষাব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউজ্জামান বাবলু বিএসএল বার্ত অনলাইন কে জানান, নিরাপদে সাধারণ মানুষের পারাপারের জন্য বারিষাব ইউনিয়নের বারিষাব গ্রামের (বানারকান্দি) ও নরোত্তমপুর গ্রামের পাশ দিয়ে বহমান বানার নদীর ওপর দিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে একটি কাঠের সেতু নির্মান করে এলাকার মানুষ। ৩০ দিন কাজ করে চমৎকার ওই সেতুর নির্মাণ শেষ হয়।

চেয়ারম্যান মোঃ আতাউজ্জামান বাবলু আরো বলেন, এলাকাবাসীর চাওয়া ও স্থায়ী ভাবে একটি সেতু নির্মাণ করার জন্য মাননীয় এমপি মহোদয়সহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো, যাতে করে এই সমস্যা
স্থায়ীভাবে লাগব করতে পারি।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে বারিষাব ইউনিয়নের দুটো গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ যোগাযোগর ভোগান্তিতে ছিলেন। সেতুটি হওয়ায় ওই দুটো গ্রামের সকল শ্রেণী পেশার মানুষের ভোগান্তি লাগব হয়েছে। সেতুটি নির্মাণে মূল উদ্যোক্তা
ছিলেন মোঃ জামাল উদ্দিন ও আব্দুল হালিম। সামাজিক সেক্রেটারী আব্দুস সাঈদ মাস্টার, মোশারফ মাস্টার, জাকির মাস্টারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এলাকার মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে এ কাঠের সেতু নির্মাণ করে।

এলাকাবাসি জানায়, মূল উদ্যোক্তা মোঃ জামাল উদ্দিন ও আব্দুল হালিম এবং সামাজিক সেক্রেটারী আব্দুস সাঈদ মাস্টার, মোশারফ মাস্টার,জাকির মাস্টারসহ প্রমুখ ব্যক্তিদের প্রচেষ্টায় এলাকার লোকজনের স্বেচ্ছাশ্রমে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে। সেতুটি হওয়ার কারণে বানার নদীর ওপর প্রান্তের গ্রামের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হয়ে গেছে।

তবে এলাকাবাসির প্রাণের দাবী বানার নদীর ওপরে স্থায়ী ভাবে সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হলে ইউনিয়নের ৩-৪টি গ্রামের মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা একদম সহজ হয়ে যেত।




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team