1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
গাজীপুরে সফল তরুণ উদ্যোক্তা হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রাঃ লিমিটেড - বিএসএল বার্তা




গাজীপুরে সফল তরুণ উদ্যোক্তা হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রাঃ লিমিটেড

গাজীপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ৭০ বার পড়া হয়েছে

আমাদের দেশ তৃতীয় বিশ্বের একটি স্বল্পোন্নত দেশ। আর জাতি হিসাবেও আমরা উন্নয়নশীল। তাইতো পৃথীবিতে যে কটি দেশে বেকার সমস্যা সবচেয়ে চরমে তারমধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। প্রতি বছর অসংখ্য তরুন-তরুনী উচ্চশিক্ষা শেষ করে কর্মসংস্থান না করতে পেরে দিশেহারা হয়ে পড়ছে। যেখানে বেশ বড় অংকের তরুণ’রা নিজেদের সংসারের হাল ধরতে নাজেহাল অবস্থা পার করছেন সেখানে কিছু তরুণ সমাজে উজ্জ্বল দৃষ্ঠান্ত স্থাপন করেছেন। সীমিত সম্পদ দিয়েও যে ঘন বসতিপূর্ণ একটা ছোট্ট দেশে উন্নয়নের অগ্রযাএা অব্যাহত রাখা যায়, ইতিমধ্যে বাংলাদেশের তরুন উদ্যোক্তারা তা প্রমাণ করতে পেরেছে।

সরকারি ও বেসরকারি হিসাবে, দেশে প্রতিবছর গবাদিপশুর খামারির সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ২০১৩ সালে ভারত থেকে গরু আসা বন্ধ হওয়ার পর দেশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা গবাদিপশু লালন-পালনে ঝুঁকে পড়েন। এসব উদ্যোক্তার প্রায় ৭০ শতাংশই তরুণ। তাঁদের বড় অংশ শিক্ষিত পেশাজীবী। তাঁরা মূল পেশার পাশাপাশি এসব খামার গড়ে তুলছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় গাজীপুরের কাপাসিয়ার কড়িহাতা ইউনিয়নের ইকুরিয়া বাজার এলাকায় ২৫ জন কর্মজীবী তরুণ যুবক তাদের পেশার পাশাপাশি উদ্যোক্তা হওয়ার প্রয়াসে শুরু করে হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রাঃ লিমিটেড নামে গবাদি পশু লালন-পালন ও হৃষ্ট-পুষ্ট করার উদ্যোগ।

২০১৬ইং সালের আগষ্ট মাসের প্রথম দিকে এই তরুন উদ্যোক্তারা কার্যক্রম শুরু করে। নতুন উদ্যোমে ২০১৮ইং সালের ৮ই জুন শুরু হয় তাদের প্রথম প্রয়াস, গরু হৃষ্ট-পুষ্ট করে তা বাজারজাত করার প্রক্রিয়া। নিজস্ব ৩ বিঘা জমির ওপর গড়ে তুলেছে ৭হাজার ৫০০শত স্কয়ার ফুটের একটি শেড। কাজ শুরু করার প্রথম পর্যায়ে বিভিন্ন রকম প্রতিবন্ধকতা আসলেও থেকে না থেকে, জয় করে নিয়েছেন সকল প্রতিবন্ধকতাকে। আর এই মেনে নেওয়ার মানসিকতা থেকেই সকল প্রতিবন্ধকতা দূর করে আজ অব্দি এগিয়ে চলেছে হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রাঃ লিমিটেড।

হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রতিষ্ঠানটির তরুণ চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান ভূঁইয়া রুবেল জানান, কৃষি উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করতে গিয়ে,গবাদি পশু হৃষ্ট-পুষ্ট করার প্রকল্পটি শুরু করি। প্রথম দিকে বেশ বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়েছে আমাদেরকে। প্রথমে গবাদি পশু লালন-পালনে খাবারের ব্যবস্থা করা আমাদেরকে ভাবিয়ে তোলে। পরবর্তীতে আমরা সাইলেজ উৎপাদন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিজেরা স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে সাইলেজ বিক্রেতা হিসেবেও নিজেদের কে দাঁড় করিয়েছি। আমাদের এই পথচলার পিছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তাসহ অফিসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বৃন্দ।

তিনি আরো জানান, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে আসন্ন কোরবানির ঈদে মানুষদেরকে স্বাস্থ্য সম্মতভাবে পশু ক্রয়-বিক্রয় করার জন্য উপজেলা পশু সম্পদ অফিস এবং খামারিদের সমন্বয় করে একটি অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রয়ের প্লাটফর্ম তৈরি করে ফেলেছি। www.handshakepvtltd.com নামে যা ইতিমধ্যে আমরা ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। এবার কোরবানি যোগ্য ৫০ টি গরু প্রস্তুত করে রেখেছেন। যা খামার থেকেই বিক্রি করা হচ্ছে। আগে ভাগে কোরবানির গরু কিনতে খামারে ভীড় জমাচ্ছেন ক্রেতারা। কারণ এখানে কোরবানির গরু আগে থেকে ক্রয় করে ঈদের সময়ে নেওয়ার সুযোগ আছে। তাতে গরু ক্রয় করে ঈদের আগের কয়েকদিন খাওয়া ও রাখার বিড়ম্বনা পোহাতে হয় না ক্রেতাদের।

হ্যান্ড শেক এগ্রো খামারটি সরেজমিনে পরিদর্শনে গেলে কাপাসিয়া উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আনিসুর রহমান জানান, কাপাসিয়া উপজেলায় মোট খামারির সংখ্যা ১ হাজার ৫২০টি। তবে এদের মধ্যে প্রান্তিক খামারিও রয়েছে। তাদের মধ্য থেকে এবার সর্বমোট ৮ হাজার ৩৬০টি কোরবানির পশু বিক্রির জন্য উপযোগি করা হয়েছে।

হ্যান্ড শেক এগ্রো প্রাঃ লিমিটেড অন্যতম উদ্যোক্তা ও পরিচালক মোঃ মাহফুজুর রহমান মামুন বলেন, আমিষের চাহিদা পূরণে এবং স্বাস্থ্য সম্মত মাংস উৎপাদন ও দেশের মধ্যে স্বনামধন্য মাংস উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গড়াই আমাদের একমাএ লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। আমাদের প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তরুনদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই। ইতিমধ্যে আমাদের খামারের কার্যক্রম দেখে অনেকেই পরামর্শ নিয়েছেন। বর্তমানে এই গ্রামে আরো দুটি এগ্রো প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। আমাদের উদ্যোক্তা কমিউনিটির মধ্যে একটা বিষয় প্রতিষ্ঠা করতে চাই যা হলো- ‘দশে মিলে করি কাজ, হারি জিতি নাহি লাজ’। আমরা আমাদের কাজের মাধ্যমে আমাদের পুরো কাপাসিয়াকে এই আওতায় আনতে চাই।

লাখো লাখো বেকার যুবকদের জন্য আমাদের পরামর্শ-পৃথিবীর কোন কাজ ছোট না। বেকার থাকাটাই বরং ছোট মানুষের কাজ। আমাদের দেশ গরু পালনের জন্য খুবই উপযোগি। বেকার না থেকে গরু পালনকে পেশা হিসেবে নেওয়া যায়। তাতে নিজের হতাশাও ঘুচবে আবার অর্থনৈতিক সফলতাও আসবে।




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team