1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
গোপালগঞ্জে পুলিশের পিটুনিতে কৃষকের মৃত্যু, হস্তক্ষেপ করবে না হাইকোর্ট - বিএসএল বার্তা




গোপালগঞ্জে পুলিশের পিটুনিতে কৃষকের মৃত্যু, হস্তক্ষেপ করবে না হাইকোর্ট

বিএসএল বার্তা ডেস্ক
  • প্রকাশিত সময় : মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০
  • ৫৫ বার পড়া হয়েছে

গোপালগঞ্জে পুলিশের পিটুনিতে কৃষক নিখিল তালুকদার হত্যার ঘটনায় এই মুহূর্তে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চ। বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এবিষয়ে এখন কোনো শুনানি গ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীকে। ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় এরইমধ্যে সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাসহ দুই আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করায় আদালত এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান অ্যাডভোকেট কুমার দেবুল দে।

আজ মঙ্গলবার কুমার দেবুল দে কালের কণ্ঠকে জানান, গত ৭ জুন সন্ধ্যায় ই-মেইলের মাধ্যমে বিষয়টি আদালতের নজরে আনি। আদালত ৮ জুন বিষয়টি দেখেছেন। এরপর ওইদিনই বিকেলে আমাকে জানিয়েছেন যে এরইমধ্যে পুলিশ প্রশাসন ব্যবস্থা নিয়েছে। মামলা হয়েছে, দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাই এ মুহূর্তে শুনানি গ্রহণ করবেন না। আইনজীবী জানান, আদালত এই মুহূর্তে কোনো হস্তক্ষেপ করবেন না।

গত ২ জুন বিকেলে রামশীল বাজারের ব্রিজের পূর্ব পাশে নিখিলসহ ৪ জন বসে সময় কাটাতে তাস খেলছিলেন। এ সময় কোটালীপাড়া থানার এএসআই শামীম উদ্দিন ঘটনাস্থলে জনৈক ভ্যানচালক ও অপর যুবককে নিয়ে গোপনে মুঠোফোনে তাস খেলার দৃশ্য ধারণ করতে থাকলে তারা বিষয়টি টের পেয়ে খেলা রেখে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এসময় অন্য ৩ জন পালিয়ে গেলেও নিখিলকে এএসআই শামীম উদ্দিন ধরে মারপিট শুরু করেন। মারপিটের এক পর্যায়ে হাটু দিয়ে নিখিলের মেরুদণ্ডে আঘাত করলে তার মেরুদণ্ড ভেঙে যায়। নিখিলকে প্রথমে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং সেখানে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ৩ জুন বিকেলে মারা যান। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে।

ওই ঘটনায় গত ৬ জুন শনিবার কোটালীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাসের কার্যালয়ে তার উপস্থিতিতে এক বৈঠক হয়। বৈঠকে নিহতের পরিবার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান হাওলাদার, পৌরসভা মেয়র কামাল হোসেন, কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, রামশীল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান খোকন বালা, কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমানসহ এলাকার গণমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে নিহতের পরিবারকে নগদ ৫ লাখ টাকা, তার স্ত্রী ইতি তালুকদার ও ছোটভাই মন্টু তালুকদারকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়।

এরপর ৭ জুন থানায় দুইজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন নিহতের ছোট ভাই মন্টু তালুকদার। এরপরই এ মামলায় ওই রাতেই এএসআই শামীম উদ্দিন ও পুলিশের সোর্স মো. রেজাউলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team