1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
করোনা উপসর্গ নিয়ে বগুড়ায় এক ব্যক্তির মৃত্যু - বিএসএল বার্তা




করোনা উপসর্গ নিয়ে বগুড়ায় এক ব্যক্তির মৃত্যু

আব্দুর রাজ্জাক বগুড়া জেলা প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ১ মে, ২০২০
  • ৯২ বার পড়া হয়েছে

বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক ব্যক্তি (৪৫) মারা গেছেন। ফুসফুসে নিউমোনিয়ার সংক্রমণসহ করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে তাঁকে আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়। আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

ওই ব্যক্তির বাড়ি বগুড়ার গাবতলী উপজেলার দুর্গাহাটা ইউনিয়নের হাতিবান্ধা গ্রামে। রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) নির্দেশনা মোতাবেক নমুনা সংগ্রহের পর আজ দুপুরের দিকে হাসপাতাল চত্বরেই জানাজা শেষে তাঁর লাশ দাফনের জন্য বিশেষ ব্যবস্থায় দুর্গাহাটা গ্রামে পাঠানো হয়।

এ নিয়ে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছয়জন মারা গেলেন।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনের দায়িত্বে থাকা আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শফিক আমিন বলেন, আইসোলেশনে মারা যাওয়া ওই রোগী আগে থেকেই ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও হাঁপানি রোগে ভুগছিলেন। উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে তাঁকে বগুড়া শহরের কলোনি এলাকার হেলথসিটি নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা–নিরীক্ষার পর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ এবং ফুসফুসে নিউমোনিয়ার সংক্রমণ ধরা পড়ে। অবস্থার অবনতি হলে গতকাল রাত ১২টার দিকে তাঁকে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে আসার পর আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়। আজ সকাল ১০টার দিকে তিনি মারা যান। পরে আইইডিসিআরের নির্দেশনা মোতাবেক তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে করোনার উপস্থিতি পরীক্ষার জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন কি না, তা প্রতিবেদন আসার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।

আরএমও শফিক আমিন আরো বলেন, আইসোলেশনে বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত সাতজনসহ করোনার উপসর্গের আরও তিনজন রোগী চিকিৎসাধীন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ছয়জন। আজ মারা যাওয়া রোগী ছাড়া অন্য পাঁচজনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়নি।

নতুন করে দুজন করোনায় শনাক্ত বগুড়া জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত নয়টা পর্যন্ত গেল ৩৬ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত দুজন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ দুজনের মধ্যে একজন আদমদীঘি উপজেলার বাসিন্দা। ৩৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি পেশায় রাজমিস্ত্রি। অন্যজন সোনাতলা উপজেলা স্বাস্থ্যরকমপ্লেক্সের এক স্বাস্থ্যকর্মীর স্ত্রী। কয়েক দিন আগেই তাঁর স্বামীর করোনা ‘পজিটিভ’ ধরা পড়ে।

বগুড়া ডেপুটি সিভিল সার্জন মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, গতকাল রাত নয়টা পর্যন্ত শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ থেকে ২৬৫ জনের নমুনার ফলাফল এসেছে। এর মধ্যে দুজন করোনা ‍‘পজিটিভ’ শনাক্ত হয়েছে।

এ নিয়ে পুলিশের সদস্য, স্বাস্থ্যকর্মী, নারী, শিশুসহ জেলায় করোনা ‘পজিটিভ’ শনাক্ত হয়েছে ২০ জন। এর মধ্যে আদমদীঘি উপজেলার এক পুলিশ সদস্য এবং রংপুরের এক শ্রমিক আইসোলেশন থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team