1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ৪১ লাখ টাকার শেখ রাসেল স্টেডিয়াম নির্মাণে অর্থ নয়ছয় - বিএসএল বার্তা




টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ৪১ লাখ টাকার শেখ রাসেল স্টেডিয়াম নির্মাণে অর্থ নয়ছয়

খায়রুল খন্দকার; ষ্টাফ রিপোর্টার, টাঙ্গাইলঃ
  • প্রকাশিত সময় : রবিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে
শেখ রাসেল স্টেডিয়াম

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার শিয়ালকোল নামকস্থানে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণে বিপুল পরিমাণ অর্থ নয়ছয় করা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। এলাকাবাসী খেলাধূলার ন্যূনতম মানসম্পন্ন একটি স্টেডিয়াম দাবি করলেও তা পুরণ হয়নি। উপরন্তু ওইস্থানের হেলিপ্যাডের ইট ও মাটি ইটভাটায় বিক্রি করা হয়েছে।

সরেজমিনে জানা যায়, বর্তমান সরকার ১৩১টি উপজেলায় খেলাধূলার মান উন্নয়নের জন্য মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এরমধ্যে টাঙ্গাইলে ৭টি স্টেডিয়াম নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্তের আলোকে ভূঞাপুরের শিয়ালকোল নামকস্থানে ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়। স্টেডিয়াম নির্মাণে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে আধুনিক মানের স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করার বাধ্যবাধকতা থাকলেও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও সাব ঠিকাদারের চরম গাফিলতি ও অতিমুনাফার লোভের কারণে যা-ইচ্ছে-তাই করা হয়েছে।
শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে একতলা বিশিষ্ট প্যাভিলিয়ন ভবন, পাবলিক টয়লেট, গ্যালারি এবং আধুনিক ফুটবল গোলপোস্ট নির্মাণ করা বাধ্যতামূলক। কিন্তু ভূঞাপুরের শিয়ালকোলে অবস্থিত শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে শুধুমাত্র নামকাওয়াস্তে একটি একতলা বিশিষ্ট প্যাভিলিয়ন ভবন নির্মাণ ও কয়েকটি ইট-সিমেন্টের তৈরি বেঞ্চ বসানো হয়েছে।

স্থানীয় ক্রীড়ামোদীদের অভিযোগ, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান স্টেডিয়ামটি নির্মাণে আয়তন কমিয়ে ফেলেছে। ৩৪০ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩০০ফুট প্রস্থ করার কথা থাকলেও মাত্র ২৭০ ফুট বাই ২০০ফুট মাঠ তৈরি করা হয়েছে। মাঠ ভরাট করে আয়তন বাড়াণোর কথা থাকলেও তা করা হয়নি। বরং আগে নির্মিত হেলিপ্যাডের প্রায় ৬০ হাজার ইট স্থানীয় ইটভাটা সহ অন্যত্র বিক্রি করা হয়েছে। হেলিপ্যাডের মাটি ছড়িয়ে দিয়ে মাঠ তৈরি করা হয়েছে। বাহির থেকে ৪৩ হাজার বর্গ ফুট মাটি এনে মাঠে ফেলার কথা থাকলেও সাব ঠিকাদার ১০০০হাজার বর্গ ফুট মাটিও আনেন নেই।

ভূঞাপুরে শিয়ালকোল হাটখোলা হেলিপ্যাড নামক স্থানে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম সাব ঠিকাদার নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই মাঠে মাটি ধসে মাটি খানাখন্দ হয়ে পাড় ভেঙ্গে গেছে।

শিয়ালকোল হাট কমিটির সভাপতি মোঃ রকিবুল ইসলাম ভূঞা সহ অনেকেই জানান, ভূঞাপুরে শিয়ালকোল শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামটি সরকারি নিয়ম অনুসারে তদারকি অভাবে ঠিকাদার মানসম্পূন্ন কাজ না করে বরাদ্দকৃত প্রকল্পের অর্থ আত্মসাৎ করেছে।

এদিকে অনেকেই জানান, স্থানীয় তদারকি না থাকায় বরাদ্দকৃত প্রকল্পের অর্থ সঠিক ভাবে ব্যবহার হয়নি। সাব-ঠিকাদার প্রসাশনের কর্মকর্তা (তদারকি)কে ম্যানেজ করে ভূঞাপুরে শিয়ালকোল শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামটির প্রকল্পের কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতি করতে সক্ষম হন।

স্থানীয় ফুটবল খেলোয়ার মোঃ আনিছুর রহমান সহ আরও কয়েক জন জানান, ভূঞাপুরে শিয়ালকোল শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামটি মানসম্পূর্ণ স্টেডিয়াম নির্মাণ না করে সাব-ঠিকাদার অনিয়মের মাধ্যমে অনউপযোগী খেলার মাঠ ও ভবন করেছে। তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বরাবরে ভূঞাপুরে শিয়ালকোল শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামটি প্রকল্পের সিডিউল অনুসারে কাজ সম্পূর্ণ করা হয় তার জন্য জোরালো দাবি জানিয়েছে।

সাব-ঠিকাদার খন্দকার জাহিদ হাসান জানান, আমি ভূঞাপুর শিয়ালকোল হাটখোলা নামক স্থানে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামটি সিডিউল অনুসারে প্রকল্পের কাজ করেছি। মিনি স্টেডিয়ামের যেটুক কাজ বাকী রয়েছে তা আমি করে দেব।

জি এস




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team