1. bslbarta@gmail.com : BSL BARTA : Golam Rabbi
অর্নিদিষ্টকালের জন্য লকডাউন গাইবান্ধা জেলা - বিএসএল বার্তা




অর্নিদিষ্টকালের জন্য লকডাউন গাইবান্ধা জেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ১০ এপ্রিল, ২০২০
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

গাইবান্ধা জেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে অনির্দিষ্টকালের জন্য পুরো জেলা লকডাউন ঘোষণা করেছেন জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন। আজ শুক্রবার (১০ এপ্রিল) বিকেল ৫টা থেকে এই আদেশ কার্যকর হবে বলে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এর আগে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির এক সভা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, করোনা ভাইরাস সংক্রামক ঝুঁকি মোকাবেলায় ‘করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটি’ এর সিদ্ধান্ত, সিভিল সার্জন গাইবান্ধার সুপারিশ ও সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনাক্রমে গাইবান্ধা জেলাকে অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হলো। এই জেলায় জনসাধারনের প্রবেশ ও প্রস্থান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী আদেশ না দেয়া পর্যন্ত সড়ক ও নৌ পথে অন্য কোন জেলা হতে কেউ এই জেলায় প্রবেশ করতে বা অন্য কোন জেলায় গমন করতে পারবে না। জেলার অভ্যন্তরে আন্তঃউপজেলা যাতায়াতের ক্ষেত্রেও একই নিষেধাজ্ঞা বলবত থাকবে। সকল ধরনের গণপরিবহন, জনসমাগত পূর্বের ন্যায় বন্ধ থাকবে। তবে জরুরী পরিসেবা, যেমন চিকিৎসা, খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ ও সংগ্রহ ইত্যাদি এর আওতার বহির্ভূত থাকবে। আদেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে জানানো হয়।
গণবিজ্ঞপ্তিতে এ ব্যাপারে আরও জানানো হয়, আজ বিকেল ৫টা থেকে লকডাউন আদেশ কার্যকর হবে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে গাইবান্ধাবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে এই আদেশ দেয়া হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন বলেন, আশাকরি, জেলাবাসী নিজেদের পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনদের মঙ্গলের কথা চিন্তা করে সরকারের আদেশ মেনে অযথা ঘরের বাইরে বের হবেন না। এই সংকটময় সময়ে সকলকে সচেতন থাকার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, আমেরিকা প্রবাসী মা ও ছেলের সংস্পর্শে এসে আরও তিনজনসহ মোট ৫জন আক্রান্ত হওয়ার পর গাইবান্ধার সার্বিক করোনা পরিস্থিতি আশংকাজনক হয়ে ওঠে । এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে প্রায় চার’শ মানুষকে নজরদারীতে রাখা হয়। তাদের মধ্যে দু’শতাধিক ছাড়পত্র পেয়েছেন। গত ১ মার্চ থেকে বিদেশ প্রত্যাগত রয়েছেন ৯শ’ ২৯ জন। এরমধ্যে ৪শ’ ৪৪ জনের ঠিকানা ও অবস্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। অবশিষ্ট ৪৮৫ জন বিদেশ প্রত্যাগত ব্যক্তির অবস্থান এখনও চিহ্নিত করতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা। এর সাথে গত দু’দিন ধরে যুক্ত হতে শুরু করেছেন নারায়নগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদিসহ আশেপাশের এলাকার শ্রমজীবি মানুষ । এ পর্যন্ত দেড় শতাধিক মানুষকে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ ও ৯২ জনকে ফুলছড়ি উপজেলা প্রশাসন হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রেখেছেন। এই পরিস্থিতিতে লকডাউন ঘোষণার দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন সচেতন মানুষ।

অন্যদিকে গতকাল রাতে আইইসিডিআর-এর ওয়েব সাইটের বরাত দেওয়া একটি কাগজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায়, গাইবান্ধায় মোট ৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন । নতুন করে গাইবান্ধায় আরও তিন জন করানা আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. আবু হানিফ কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি তাদের জানা নেই।




নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর..






















© All rights reserved © 2019 bslbarta.com
Customized By BSLBarta Team