বগুড়ার ধুনট উপজেলার উত্তর কান্তনগর গ্রামের দরিদ্র কৃষক জিহাদ সরকারের ৩৩ শতক জমির পাকা ধান কেটে দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

২৬ এপ্রিল সোমবার সকাল থেকে ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ স্বপনের নেতৃত্বে কৃষকের জমির ধান কাটেন ২২জন ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

হত দরিদ্র কৃষক জিহাদ সরকারকে সাথে নিয়ে জমিতে ধান কাটা শুরু করে ছাত্রলীগ নেতারা। দুপুর ১২টার মধ্যে ধান কাটা শেষ হওয়ায় নেতারা ক্ষেতের ধান আঁটি বেঁধে ওই কৃষকের বাড়িতে নিয়ে মাড়াইয়ের ব্যবস্থা করেন।

ধান কাটায় অংশ নেয় উপজেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক কাজী সুলতান, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক মানিক মিয়া, আইন বিষয়ক সম্পাদক আল আমিন, ধুনট ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক সোহানুর রহমান সোহাগ, এলাঙ্গী ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি অসিম আকরাম, সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা, গোসাইবাড়ী ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সামিউল ইসলাম সম্রাট, আওলাকান্দী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাকিল আহমেদ, ছাত্রলীগ নেতা সাব্বির হাসান সিজু, মহন, সান, হৃদয়, উজ্জল, সবুজ, রাসেল, মনির, সুলতান, রিফাত, আনারুল, বাঁধন, সোহেল।

আবু সালেহ স্বপন বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা ছাত্রলীগ নেতারা করোনাকালীন দরিদ্র কৃষকের পাশে থাকার অংশ হিসেবে এ কর্মসূচি হাতে নিয়েছি।

জিহাদ বলেন, ক্ষেতের ধান পাকলেও অর্থ সংকটের কারনে ধান কাটা নিয়ে দুঃচিন্তায় পড়েছিলাম। বিষয়টি জানার পরে ছাত্রলীগের নেতারা ধান কেটে দেওয়ার কথা আমাকে জানায়। তারা আমার ৩৩ শতক জমির পাকা ধান কেটে দিয়েছেন। এজন্য আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এবং ছাত্রলীগ নেতাদের ধন্যবাদ জানাই।