এস আর সোহাগ গাজীপুরঃ করোনা রোধে চলমান কঠোর বিধিনিষেধেও গাজীপুরের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন বেড়েই চলছে দর্শনার্থীদের ভিড়। বিশেষ করে দুপুরের পর থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত নারী-শিশুসহ নানা বয়সী মানুষ ওইসব স্থানে ভিড় করছেন। তাদের জন্য চটপটি-ফুচকাসহ নানা পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছে অস্থায়ী দোকানও।সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, ঈদের পর থেকে গাজীপুর মহানগরীর ভাঙাব্রিজ, কারখানা বাজার, ইছালী, কাশিমপুর, মারতা ব্রিজ, টঙ্গী রেলব্রিজ, টঙ্গীর তুরাগ নদী বন্দর, গাছা ইছরকান্দি, সুকুন্দীরবাগ রেললাইনে প্রতিদিন মানুষের মেলা বসছে। মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে রিকশা, অটোরিকশা ও ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে এসব স্থানে ভিড় করছেন তারা। এতে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। অনেকেই পরেন না মাস্কও। ফলে এসব আগত দর্শনার্থীর জন্য করোনা ঝুঁকিতে রয়েছেন এলাকার সাধারণ মানুষ।কাশিমপুর ও ভাঙ্গাব্রিজ এলাকার বাসিন্দা ফরিদ হোসেন বলেন,গাজীপুর মহানগরীর ইসলামপুর থেকে কাশিমপুর বাজার পর্যন্ত ভাঙ্গাব্রিজ থেকে ট্রলারযোগে যাতায়াত করতে হয়। সারাদেশে নৌপথে নৌযান বন্ধ থাকলেও এখানে শত শত নৌযান মানুষ পারাপারের জন্য অপেক্ষমাণ থাকে। এসব ট্রলার যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি বিনোদনপ্রেমীদের নিয়ে ঘুরে বেড়ায়।তিনি আরও বলেন, দর্শনার্থীরা তাদের ঘোরাঘুরির ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে অন্যদেরও উৎসাহ দিচ্ছেন। এতে প্রতিদিন তুরাগ নদীর দুপাড়ে বিনোদন পিপাসুদের ভিড় বেড়েই চলছে।

ফরিদ হোসেন বলেন, জেলার সব কারখানা বন্ধ থাকায় শ্রমিকরা তাদের বন্ধুবান্ধব নিয়ে বিকেলে দল বেঁধে ওইসব স্থানে ভিড় করেন।যারা স্বাস্থ্যবিধি ও আইন ভঙ্গ করেছেন তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। আজ ২৭ জুলাই মহানগরীর ইসলামপুর ফিউচারগারা (ভাঙ্গা ব্রীজ) এলাকায়, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ কামরুজ্জামান এর নেতৃত্বে বিজিবি সোবেদা মোঃমুক্তার হোসেন বিজিবি সদস্যদের নিয়ে  মোবাই কোর্ট পরিচালনা করা হয়। এসময় বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হওয়া ও মাস্ক ব্যবহার না করায় দণ্ডবিধি ১৮৬০/২৬৯ ধারায় ২০ জনকে এগারো হাজার তিশত টাকা জরিমানা ও সড়ক পরিবহন ২০১৮ আইনের ৬৫/৯২ ধারায় সাতটি মামলা দেয়া হয়।

২৭ জুলাই মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় গত চব্বিশ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে নতুন মৃত ২৫৮ জন এনিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাড়ালো ১৯ হাজার ৭৭৯ জন।গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন  আক্রান্ত হয়েছে ১৫ হাজার ১৯২ জন  এনিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৮২৭ জন। করোনা সংক্রমণ এড়াতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী মাস্ক পরিধান করা ঘন ঘন সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এবং বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বাহির না হওয়া একমাত্র উপায় হিসাবে না মানলে ভয়াবহ রুপ নিতে পারে প্রাণঘাতী এই  করোনা ভাইরাস।